Ticker

6/recent/ticker-posts

ই শ্রম কার্ড কি | ই শ্রম কার্ডের সুবিধা | Full Details of E shram card

E-shram Card

সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকার একটি নতুন প্রকল্পের সূচনা করেছেন, যার নাম ই শ্রম। এই প্রকল্পের অধীন ভারতবর্ষের প্রতিটা অসংগঠিত শ্রমিকরা নিজেদের নাম নথিভুক্ত করতে পারবে ও এই ই শ্রম কার্ডটি পেতে পারবে। আজকের আর্টিকেল এ আলোচনা করবো এই ই শ্রম কার্ডের সুবিধা কি ? কিভাবে এই কার্ড টি বানাবেন ? সমস্তকিছু। এছাড়াও আপনাদের কোন অন্য জিজ্ঞাস্য থাকলে তা অবশ্যই আমাদের কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন। 

 ই শ্রম কার্ড কি ? 

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্রমোদী জি দেশের সমস্ত অসংগঠিত শ্রমিকদের একটি ডেটাবেস তৈরি করার জন্য এই প্রকল্পের সূচনা করেছেন। তবে এই ই-শ্রম কার্ড পোর্টালে নাম নথিভুক্ত করার ক্ষেত্রে কিছু শর্তাবলী রয়েছে। সেই সব শর্তাবলী পূরণ করলেই তবেই নাম নথিভুক্ত করা যাবে। 

এই পোর্টাল এ কৃষক/শ্রমিক/টোটো-অটো-রিকশাচালক চালক/ড্রাইভার/কন্ডাকটর/নির্মাণ কর্মী/ প্রাইভেট টিচার/আশা কর্মী/অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী/ , রাস্তার বিক্রেতা, মিড-ডে মিল খাবার শ্রমিক, ইট ভাটা শ্রমিক, মুচি, গৃহকর্মী, ওয়াশার পুরুষ, গৃহ ভিত্তিক কর্মী, নিজস্ব হিসাব কর্মী, কৃষি শ্রমিক, নির্মাণ শ্রমিক, বিড়ি শ্রমিক, তাঁত শ্রমিক, চামড়া শ্রমিক, অডিও-ভিজ্যুয়াল শ্রমিক বা অনুরূপ অন্যান্য পেশায় যুক্ত শ্রমিক থেকে শুরু করে প্রায় সমস্ত অসংগঠিত শ্রমিকেরা এখানে আবেদন করতে পারবেন। 


কিভাবে ই শ্রম কার্ডের জন্য আবেদন করবেন ?

 E-shram Card আপনি নিজেই বাড়িতে বসে নিজের মোবাইল/ল্যাপটপ/ট্যাব এর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে আপনার আঁধার কার্ডের সঙ্গে মোবাইল নম্বর যুক্ত থাকা প্রয়োজন। অন্যথায় আপনাকে আপনার নিকটবর্তী তথ্য মিত্র কেন্দ্রে (CSC) তে গিয়ে আপনাকে আবেদন করতে হবে। 

 1. প্রথমে এই সাইটে গিয়ে https://www.eshram.gov.in রেজিস্ট্রেশন করতে লগ ইন করুন।
 2. এখানে “Register on e-Shram” সেকশন দেখতে পাবেন আপনি।
 3. একবার এখানে ক্লিক করলে https://register.eshram.gov.in/#/user/self এই জায়গায় পৌঁছে দেবে সাইট।
 4. e Shram Portal পোর্টালে রেজিস্ট্রশেনের ক্ষেত্রে আধার নম্বর, আধার লিঙ্কড অ্যাকটিভ মোবাইল নম্বর, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ডিটেইলস দিতে হবে পোর্টালে।
 5. রেজিস্ট্রশেনের জন্য আবেদনকারী শ্রমিকের বয়স ১৬-৫৯ বছর হতে হবে। এর ঊর্ধ্বে কোনও ব্যক্তির নথিভুক্তিকরণ করা হবে না।

ই শ্রম কার্ডের জন্য কি কোন টাকা দিতে হবে

না। ই শ্রম কার্ডের জন্য আবেদন সম্পূর্ন বিনামূল্যে। এরজন্য আপনাকে কোনরকম টাকা দিতে হবে না।

ই শ্রম কার্ডের আবেদনের জন্য কোন কোন ডকুমেন্ট লাগবে ? 

ই শ্রম কার্ডে আবেদনের জন্য আপনাকে কোন রকম ডকুমেন্ট এর হার্ড কপির প্রয়োজন নেই। শুধুমাত্র আপনার আঁধার নম্বর, মোবাইল নম্বর, ব্যাংক একাউন্ট ডিটেইলস নিয়ে তথ্য মিত্র কেন্দ্র (CSC) তে যেতে হবে।


ই শ্রম কার্ডের সুবিধা কি ? 

কোনও কারণে শ্রমিকের দুর্ঘটনায় মৃত্যু হলে পরিবারকে ২ লক্ষ টাকা দেওয়া হবে।পাশাপাশি দুর্ঘটনায় ব্যক্তি বিকলাঙ্গ হয়ে গেলে সরকারের তরফে একই টাকা দেওয়া হবে। তবে দুর্ঘটনায় ব্যক্তি আংশিক শারীরিকভাবে অক্ষম হলে ১ লক্ষ টাকা দেবে কেন্দ্র। এছাড়াও Pradhan Mantri Shram Yogi Maandhan Yojana এর মাধ্যমে মাসিক ৩০০০ টাকা ভাতা পেতে পারেন । ও অন্যান্য সরকারি প্রকল্পের সুবিধা পেতে পারবেন এই কার্ড থাকলে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

9 মন্তব্যসমূহ

  1. Kintu yeh to ek bat samaj meh nehi arahahey monthly money cutting from account number. Yeh keya bharosa ka baat .

    উত্তরমুছুন
  2. ঐ কাডের জন্য কোনো টাকা কাটবে কি বছরে

    উত্তরমুছুন
  3. আমার বয়স ৫৩ বৎসর, সম্পূর্ণ তথ্য না জেনে আমি একটি ই-শ্রম কার্ড রেজিষ্ট্রেশন করেছি,তাই আমি জানতে চাই আমার প্রতি মাসে প্রিমিয়াম কতো টাকা ব্যাংক থেকে কেটে নেয়া হবে।

    উত্তরমুছুন
  4. e-shram-card.করানোর পর বাতিলকরা যায় কি ? জানালে উপকৃত হবো।

    উত্তরমুছুন
  5. জয়েন্ট একাউন্ট নং কী দেওয়া যাবে এই কার্ড করার জন্য?? নাকি শুধুমাত্র সিঙ্গেল একাউন্ট ই প্রযোজ্য??

    উত্তরমুছুন